Routine

ডিগ্রী দ্বিতীয় বর্ষ পরীক্ষার রুটিন

করোনা মহামারীর প্রকোপ কমে আসায় মানুষ নতুনভাবে তাদের সকল কাজকর্ম শুরু করেছে। স্কুল-কলেজ অনেক দিন বন্ধ থাকার পরে আবারো খুলে দেওয়া হয়েছে। প্রাণ ফিরে পেয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর আঙ্গিনা। স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার সাথে সাথেই নতুনভাবে ভাবতে শুরু করা হয়েছে স্থগিত হওয়া পরীক্ষাগুলো নিয়ে। আমরা জানি 2022 সালের শুরুর দিকেই নতুনভাবে করোনাভাইরাস মাথাচাড়া দিয়ে উঠলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অনির্দিষ্টকালের জন্য আবার বন্ধ করে দেয়া হয়, সাথে সাথে সকল পাবলিক পরীক্ষা গুলো স্থগিত করে দেওয়া হয়। এর প্রভাব পড়ে সকল শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের উপর।

যেহেতু এখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেয়া হয়েছে তাই শিক্ষার্থীদের মাঝে এখন একটাই চিন্তা কোন সময়ে তাদের পরীক্ষাগুলো অনুষ্ঠিত হবে। তাদের দুশ্চিন্তার অবসান হতে যাচ্ছে শীঘ্রই। কারণ খুব শীঘ্রই তাদের স্থগিত হওয়া পরীক্ষাগুলো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আমরা জানি পরীক্ষার সময়সূচি নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনেক উত্তেজনা কাজ করে। তারা অনেকটা চাপের মধ্যে থাকে। অনেকে ভালো প্রস্তুতি নিয়েও পরীক্ষার রুটিন হাতে না পাওয়ায় সবকিছু আস্তে আস্তে গুলিয়ে ফেলে।

আমাদের আজকের এই লেখা ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্য। অন্যান্য শ্রেণীর মত ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা ও অনেক চাপের মধ্যে রয়েছে। রুটিন নিয়ে তাদের মধ্যেও অনেক উত্তেজনা কাজ করছে। অনেক শিক্ষার্থী পড়াশোনা শুরু করতে পারছে না শুধু পরীক্ষার রুটিন হাতে না পাওয়ায়, তারা অনেক দ্বিধা দ্বন্দের মধ্যে রয়েছে আদৌ তাদের পরীক্ষা সময়মতো হবে কিনা এই নিয়ে। পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা অনেক সময় বিভিন্ন ধরনের কাজে যুক্ত থাকে।

বিভিন্ন ধরনের কাজের সাথে যুক্ত থাকার কারণে তারা সারা বছর পরীক্ষার জন্য তেমন প্রস্তুতি নিতে পারে না। পরীক্ষার রুটিন হাতে পাওয়ার পর পর তাদের মধ্যে স্বল্প সময়ে ভালো একটি প্রস্তুতি নেওয়ার পরিস্থিতি তৈরি হয়। কিন্তু রুটিন হাতে না পেলে প্রস্তুতি নেওয়ার মানসিকতা তেমন একটা থাকেনা। পরীক্ষা কোন সময় হবে এটা না জানলে পড়ায় মন না বসা টা-ই স্বাভাবিক।

যেহেতু ডিগ্রী না অনার্সে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা সারাবছর তেমন একটা পড়াশোনা করে না তাই তারা পরীক্ষার আগের সময়টা খুব ভালোভাবে কাজে লাগানোর চেষ্টা করে। অনেক শিক্ষার্থী পরীক্ষার আগের সময় টুকুর সঠিক ব্যবহার করে খুব ভালো ফলাফল অর্জন করতে সক্ষম হয়। কিন্তু পরীক্ষার রুটিন হাতে না পেলে এই ব্যাপারটা অনেক কঠিন হয়ে পড়ে।

ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্য আনন্দের খবর এইযে তারা পরীক্ষার রুটিন আমাদের ওয়েবসাইট থেকেই সংগ্রহ করে নিতে পারবেন। এতে তারা পরীক্ষার আগের সময়টুকু খুব সুন্দর ভাবে কাজে লাগাতে পারবেন এবং পরীক্ষার জন্য খুব ভালো একটি প্রস্তুতি গ্রহণ করতে পারবেন।

আগের বছরগুলোতে যারা ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষার রুটিন এর জন্য আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করেছিলেন তারা নিশ্চয় জেনে থাকবেন পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথে আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে আপলোড করেছিলাম। এতে শিক্ষার্থীরা অনেক উপকৃত হয়েছিল। সঠিক সময়ে পরীক্ষার রুটিন হাতে পাওয়ায় পরীক্ষার প্রস্তুতি নেয়া টা তাদের জন্য অনেক সহজ হয়েছিল। এই বছরও তার ব্যতিক্রম হবে না।

ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষার রুটিন প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথেই আমরা আপনাদের জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে আপলোড করে দেব। আর এই জন্য আপনাদের নিয়মিত চোখ রাখতে হবে আমাদের ওয়েবসাইটে। আর রুটিন প্রকাশিত হওয়ার সাথে সাথেই তা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে সংগ্রহ করে নিতে হবে, এবং সে অনুযায়ী সামনের সময় গুলো ব্যবহার করতে হবে।

পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করার জন্য পরীক্ষার আগের সময়টুকু অনেক গুরত্বপূর্ণ হয়। যারা সারা বছর অনেক বেশি পরিশ্রম করে পড়াশোনা করেন তাদের জন্য ও পরীক্ষার আগের সময়টুকু অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এই সময়ে তাদের পূর্বের পড়া গুলো পুনরায় চর্চা না করলে সেগুলো পরীক্ষার খাতায় ভুল করার সম্ভাবনা থাকে। তাই পরীক্ষার আগের সময়গুলোতে পূর্বে পড়া টপিক গুলো বারবার রিভিশন দিয়ে নিতে হয় এবং সেগুলো বারবার খাতায় অনুশীলন করতে হয়।

আর যারা সারা বছর ঠিক ভাবে প্রস্তুতি নেয় নি তাদের জন্য তো এই সময়টুকু কাজে লাগানোর কোন বিকল্প নেই। অনেক শিক্ষার্থী আছে যারা সারাবছর মোটামুটি পড়াশোনা করেন এবং পরীক্ষার আগ মুহূর্তে পড়াশোনার গতি অনেক বাড়িয়ে দেন। তাই আপনার প্রস্তুতি যেমনই থাকুক পরীক্ষার আগের সময়গুলো আপনাকে কাজে লাগাতেই হবে। তা না হলে পরীক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জন করা সম্ভব নয়।

ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা যেন রুটিন হাতে পাওয়া মাত্রই সে অনুযায়ী পড়াশোনা শুরু করতে পারে সেই প্রত্যাশা করি। তাই দেরি না করে আমাদের ওয়েবসাইট থেকে খুব দ্রুত পরীক্ষার রুটিন সংগ্রহ করুন ও পরীক্ষার আগের সময়গুলো সঠিকভাবে কাজে লাগান। পরিশ্রম কখনো বিফলে যায়না। সঠিক ভাবে পরিশ্রম করলে ফলাফল অবশ্যই আশানুরূপ হয়। পরীক্ষার আগের সময় গুলোতে সুস্থ থাকাটা অত্যন্ত জরুরী। আর এই জন্যই পরীক্ষার রুটিন ফলো করে শারীরিক ও মানসিক সুস্থতার দিকটা পরখ করে নেওয়া দরকার। শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকলেই পরিশ্রম করে ভাল ফলাফল অর্জন করা সম্ভব।

Al Imran

Al Imran lives in Tangail, Bangladesh. I am working as a freelancer for more than 4 years. I am very proud of being a Blogger.

Related Articles